স্বদেশ আইটি
ওয়েব হোস্টিং

প্রফেশনাল ওয়েব হোস্টিং সার্ভিস প্রোভাইডার কোম্পানি ঢাকা বাংলাদেশ

ওয়েব হোস্টিং :

যেকোন তথ্যকে সকলের নিকট তুলে ধরার সবচেয়ে সহজ ও জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে ওয়েবসাইট। একটি ওয়েবসাইটকে যদি তুলনা করা হয় আপনার প্রতিষ্ঠানের অফিস, বিল্ডিং অথবা বাড়ি হিসেবে, তাহলে তার সকল তথ্য বা কন্টেন্ট হচ্ছে এর আসবারপত্র। সেক্ষেত্রে একটি ওয়েবসাইট এর হোস্টিংকে তুলনা করা যায় আপনার অফিস, বিল্ডিং বা বাড়ির জায়গার সাথে। অর্থাৎ হোস্টিং হল একটি সার্ভার বা ওয়েবসাইট রাখার জায়গা।

সহজ ভাবে বলতে গেলে হোস্টিং হচ্ছে একটি ওয়েবসাইট এর স্পেস। উদাহরণ স্বরূপ বলা যায়- আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপে যাবতীয় ডকুমেন্ট, গান, মুভি ইত্যাদি কোথায় সেভ হয় এবং কোথা থেকে অপারেট করেন? নিশ্চয়ই বলবেন হার্ডডিস্ক হতে। হ্যাঁ হোস্টিং হচ্ছে হার্ডডিস্কের অনুরুপ জায়গা, যেখানে আপনার ওয়েবসাইটের যাবতীয় ফাইল, ডাটাবেসসহ সবকিছুই আপলোড করা থাকে। এবং ভিজিটরগণ যেকোনো জায়গা থেকে আপনার ওয়েবসাইট টি ব্যবহার করতে পারবে।

কেন আপনার হোস্টিং করা প্রয়োজন?

অনেকেই আছে যারা হোস্টিং কি তা বুঝতে পারেনা। আপনি যদি একটি ডোমেইন কিনেন তাহলে অবশ্যই তার জন্য হোস্টিং কিনতে হবে। আপনি একটি ডোমেইন কিনলেন তার মানে একটি ওয়েবসাইট এর নাম কিনলেন, এখন আপনার ওয়েবসাইট টিকে দিনরাত ২৪ ঘণ্টা অনলাইনে রাখার জন্য হোস্টিং এর প্রয়োজন। আর আপনার ওয়েবসাইট টিকে অনলাইনের মাধ্যমে অন্যদের দেখার জন্য উপযোগী করাই হচ্ছে ওয়েব হোস্টিং।

আপনার ওয়েবসাইট এর যদি হোস্টিং কেনা থাকে তাহলেই ভিজিটররা ওয়েবসাইট টি ব্যবহার করার সুযোগ পাবে। আপনার ওয়েবসাইট টি তখনই সারা বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে দেখা যাবে যখন আপনি আপনার ওয়েবসাইট টি কোন ওয়েব সার্ভারে হোস্টিং করবেন। অর্থাৎ ওয়েবসাইট এর জন্য জায়গা ভাড়া নিবেন। যেমন- স্বদেশ আইটি ইন্সটিটিউট একটি হোস্টিং প্রোভাইডার কোম্পানি। আপনি এই ওয়েবসাইট টি বিশ্বের যেকোন জায়গা থেকে ব্যবহার করতে পারবেন এবং হোস্টিং সেবা ছাড়াও আরো অন্যান্য সেবা নিতে পারবেন।

আপনার ওয়েবসাইট এর চাহিদা অনুযায়ী আপনি শেয়ার্ড, ভিপিএস, ডেডিকেটেড বা ক্লাউড হোস্টিং প্যাকেজ বেছে নিতে পারেন। এটা সম্পন্ন নির্ভর করবে আপনার ওয়েবসাইট এর উপর। আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটর সংখ্যা যদি কম হয় তাহলে শেয়ারড হোস্টিং ভাল। যেসকল ওয়েবসাইটের ভিজিটর সংখ্যা তুলনামূলক অনেক বেশি সেই সকল ওয়েবসাইটের জন্য পর্যায়ক্রমে ভিপিএস, ডেডিকেটেড কিংবা ক্লাউড হোস্টিং ব্যবহার করাই ভাল।

আপনার ওয়েবসাইট এর সাইজের উপর নির্ভর করবে হোস্টিং এর ডিস্ক স্পেস। এজন্য ওয়েব হোস্টিং কেনার আগে আপনাকে যথেষ্ট সতর্ক থাকতে হবে। আজকাল অনেক কম দামে আপনি ওয়েব হোস্টিং কিনতে পারবেন। কিন্ত আপনার ওয়েবসাইটে ভাল স্প্রীড পাবেন না। এক্ষেত্রে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর পাওয়ার সম্বাবনা খুবই কম। তাই আপনার খরচ একটু বেশি হলেও দ্রুতগতি সম্পন্ন ভাল মানের ওয়েব হোস্টিং ব্যবহার করুন।

হোস্টিং কেনার সময় যে বিষয় গুলো জানা অত্যন্ত জরুরী :

লোডিং…..লোডিং…..লোডিং এভাবে যদি আপনার ওয়েবসাইট রেসপন্স করে তাহলে ভিজিটর থাকতে চাইবে না। মনে করুন আপনি অনেক কষ্ট করে যানজট অতিক্রম করে বসুন্ধরা শপিং মলে গেলেন কিন্তু যেয়ে দেখলেন বন্ধ আছে। তাহলে পরের বার কষ্ট করে আর ঐ শপিং মলে যেতে ইচ্ছা করবেনা। তেমনি আপনার ওয়েবসাইট বন্ধ থাকলে প্রচুর পরিমাণে ভিজিটর এভাবেই হারাবেন।

১। এজন্য বুঝে শুনে ভাল মানের ওয়েব হোস্টিং নির্বাচন করুন। সাধারণত হোস্টিং এর ব্যান্ডউইথ, রাম, সিপিইউ বাবহারে লিমিট থাকে। লিমিট অতিক্রম করলে ওয়েবসাইট বন্ধ হয়ে যায়।
২। ডেডিকেটেড হোস্টিং ব্যবহার করলে ওয়েবসাইট সবসময় সচল থাকবে। এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করবে ক্লাউড হোস্টিং।
৩। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ওয়েবসাইট এর লোডিং টাইম নির্ভর করে হোস্টিং এর উপর।
৪। লিমিট রিসোর্স এর কারণে যাতে ওয়েবসাইট বন্ধ না হয়। এখানে আপনাকে সাহায্য করবে ডেডিকেটেড হোস্টিং।
৫। ক্লাউড ব্যাকআপ সিস্টেমে আপনার ব্যাকআপ ফাইল একটি পৃথক সার্ভারে রাখা হয়।
৬। এক্ষেত্রে আপনি যদি পিসিতে সফটওয়্যার ইন্সটল করে রাখেন তাহলে আপনার ব্যাকআপ ফাইল আপনার পিসিতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ডাউনলোড হয়ে যাবে।
৭। এছাড়াও অনেক দ্রুত স্পিড পাবেন আর আপনি থাকবেন চিন্তামুক্ত।
৮। আমরা সব সময় সস্তার দিকেই বেশি ঝুকি! কিন্তু সস্তার যে তিন অবস্তা হয় সেটা আমরা কম বেশি সবাই জানি। বিশেষ করে ডোমেইন এবং হোস্টিং এর ব্যপারে এমনটা করবেন না।
৯। একটু কম দামে হোস্টিং কিনে পস্তানোর চেয়ে, একটু বেশি দাম দিয়ে ভাল হোস্টিং কেনায় ভাল। তা নাহলে পরে আপনি নিজেই ঝামেলায় পড়তে পারেন।

আমাদের হোস্টিং সার্ভিস এর সুবিধা সমূহ :

  • হোস্টিং কন্ট্রোল প্যানেল বা সিপ্যানেল প্রদান।
  • আপনার চাহিদা অনুযায়ী সার্ভার কনফিগারেশনের সুযোগ।
  • উন্নতমানের ও দ্রুতগতি সম্পন্ন হোস্টিং সেবা।
  • যেকোনো সময় আপনি হোস্টিং প্যাকেজ পরিবর্তন করতে পারবেন।
  • সিকিউরিটি গ্যারান্টি ১০০%।
  • সার্ভার আপটাইম গ্যারান্টি ৯৯.৯%।
  • অটো ওয়েবসাইট ব্যাকআপ সিস্টেম।
  • ওয়েবসাইট মনিটরিং ও রিপোর্টিং।
  • ১০০% ম্যানিব্যাক গ্যারান্টি।
  • ২৪/৭ সাপোর্টের নিশ্চয়তা।
  • এছাড়াও আরো অনেক সুবিধা পাবেন আমাদের ওয়েব হোস্টিং সার্ভিসে।

সর্বোপরি হোস্টিং নেওয়ার আগে অবশ্যই যাচাই করে মানসম্মত ওয়েব হোস্টিং প্রোভাইডারের কাছ থেকে হোস্টিং নেওয়া উচিত। ভাল মানের হোস্টিং পেতে আপনি আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন। আমাদের ওয়েব হোস্টিং সবার থেকে সেরা এবং অধিক জনপ্রিয়। আমরা আপনাকে লাইফ টাইম সাপোর্ট দিতে সর্বদা প্রস্তুত।

বিভাগ সমূহ