স্বদেশ আইটি
বিএমডব্লিউ

জ্বালানি ছাড়াই চলবে বিএমডব্লিউ নতুন মডেলের গাড়ি

জার্মানির বিলাস বহুল গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বিএমডব্লিউ নতুন মডেলের গাড়ি নিয়ে হাজির হয়েছে বাংলাদেশের বাজারে। নতুন এই বিএমডব্লিউ গাড়ির ইলেক্ট্রিক প্লাস ফুয়েলে নয় বরং সম্পূর্ণরূপে ব্যাটারিতে চলবে। বিএমডব্লিউ ৭৪০এলই এক্সড্রাইভ মডেলের এই গাড়িটির দাম ধরা হয়েছে দুই কোটি ২২ লাখ টাকা।

এক্সিকিউটিভ মটরস লিমিটেডের হাত ধরে হাইব্রিড আই পারফমেন্সের প্লাগইন গাড়িতে এই সুবিধা পাওয়া যাবে। প্রতি ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার গতিতে চলবে এই গাড়ি এবং চলাকালীন অবস্থায় হবে এর ব্যাটারির চার্জ।

গত ৩ নভেম্বর ২০১৮ রোজ শনিবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে এক্সিকিউটিভ মটরস লিমিটেডের নিজস্ব শোরুমে আনুষ্ঠানিক ভাবে দেশের বাজারে যাত্রা শুরু করলো এই বিএমডব্লিউ গাড়ি। এই ধরনের হাইব্রিড প্লাগইন গাড়ি জ্বালানি সাশ্রয়ী এবং কার্বন নিঃসরণ খুব স্বল্প মাত্রায় হওয়ায় খুবই পরিবেশ বান্ধব।

বর্তমানে এক্সিকিউটিভ মটরস লিমিটেডের শোরুমে ইলেক্ট্রিক প্লাস ফুয়েলে চলা আরো দুটি মডেলের নতুন গাড়ি পাওয়া যাবে। মডেল গুলো হল- বিএমডব্লিউ এক্সফাইভ এক্সড্রাইভ ৪০ই ও বিএমডব্লিউ ৫৩০ই। এই বিএমডব্লিউ গাড়ি গুলোর দাম যথাক্রমে এক কোটি ১৮ লাখ ও এক কোটি ২৫ লাখ টাকা।

গাড়ির উল্লেখ যোগ্য দিক জানাতে গিয়ে বর্তমানে এক্সিকিউটিভ মটরস লিমিটেডের ডিরেক্টর (অপারেশন) দেওয়ান মুহাম্মদ সাজিদ আফজাল বলেন, এই গাড়ি খুব ফুয়েল ইফিশিয়েন্ট, ঢাকার ট্রাফিক সিগন্যালে যেখানে একজন মানুষ প্রতিদিন ৩০ কিলোমিটার কমিউট করে সেই অনুযায়ী হিসাব করতে গেলে একজন ব্যবহারকারী প্রতিদিন একবার চার্জেই ফুয়েল ছাড়াই ঢাকাতে চলাচল করতে পারবে।

তিনি আরও জানান, পূর্বে বিএমডব্লিউ ৫৩০ই মডেলের গাড়িটির দাম ছিল এক কোটি ৫০ লাখ টাকা কিন্তু পরিবেশ রক্ষায় বাংলাদেশ সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপ এর কারণে ট্যাক্স কমিয়ে দেওয়ার সেই গাড়িটি এখন এক কোটি ২৫ লাখ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

জানা যায়, নতুন এই তিনটি গাড়িতেই পাঁচ বছরের বিক্রয়োত্তর সার্ভিস পাওয়া যাবে। যার মধ্যে রয়েছে সার্ভিস ওয়্যারেন্টি, রক্ষণাবেক্ষণ এবং বিনা মূল্যে মেরামত সুবিধা।

ইলেকট্রিক ও হাইব্রিড ফুয়েল ইঞ্জিন এর সমন্বয়ে বাংলাদেশে সর্বপ্রথম ব্র্যান্ড নিউ গাড়ি নিয়ে এলো বিএমডব্লিউ। আই পারফরমেন্স খ্যাত প্লাগইন মডেলের গাড়ি গুলো ১ ফোটা জ্বালানি খরচ না করেই প্রতি ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত চলতে সক্ষম।

এই গাড়িটি পরিপূর্ণ চার্জ নিতে সময় নেয় তিন থেকে সাড়ে তিন ঘণ্টা। অন্য দুটি মডেলেও ফুয়েল সাশ্রয়ের জন্য হাইব্রিড ইঞ্জিন রয়েছে। তিনটি মোডে গাড়ি গুলো ড্রাইভ করা যাবে। এছাড়াও এর বিশেষ ফিচার হচ্ছে- ফুয়েলে চলা অবস্থায়ই এটি নিজস্ব প্রযুক্তির সাহায্যে চার্জড আপ হতে পারবে যা সাধারণ হাইব্রিড গাড়িতে সম্ভব ছিলনা।

ফয়সাল আহমেদ

খুব সাধারণ একজন মানুষ। নিজের সম্পর্কে বলার তেমন কিছুই নেই। লেখাপড়া শেষ করেছি কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে। ছোটবেলা থেকেই প্রযুক্তির প্রতি ভীষণ আগ্রহ ছিল। তাই শেষ পর্যন্ত প্রযুক্তিকেই বেছে নিয়েছি পথ চলার সঙ্গী হিসেবে। কাজ করি ডিজাইন, ডেভেলপিং এবং ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে। ভালবাসি আইটি সংক্রান্ত নতুন কিছু শিখতে। আমার শেখা তখনই স্বার্থক যখন সেটা অন্যদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে পারি। আর এই জন্যই প্রতিষ্ঠা করেছি স্বদেশ আইটি।

Add comment

বিভাগ সমূহ